সালাতের গুরুত্ব বা নামাজের গুরুত্ব বই ডাউনলোড

782
সালাতের গুরুত্ব বা নামাজের গুরুত্ব
সালাতের গুরুত্ব

সালাতের গুরুত্ব বা নামাজের গুরুত্ব বই ডাউনলোড

 সমস্ত প্রশংসা মহান আল্লাহর জন্য। দরুদ ও সালাম বর্ষিত হোক আমাদের নবী মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহী ওয়াসাল্লাম, তার পরিবার ও সকল সাহাবার প্রতি।  

আরও বই পড়ুন- কুরআন হিফজ করবেন যেভাবে

প্রত্যেক মানুষের উচিৎ সালাতের প্রতি গুরুত্বারোপ করা, কেননা সালাতের গুরুত্ব বা নামাজের গুরুত্ব হচ্ছে ইসলামে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয় এবং এর মর্যাদা অনেক বেশি, আর এবাদত যেন একমাত্র আল্লাহর জন্য যেন করে, এবং আল্লাহ ব্যতীত অন্য সকল কিছু থেকে মুক্ত থাকে, সে যে কেউ হোক না কেন, আর এ বিশ্বাস যেন রাখে যে, মহা পবিত্র আল্লাহই একমাত্র সত্য উপাস্য আর তিনি ব্যতীত যাদের উপাসনা করা হয় তারা সকলেই বাতিল।

যেমন আল্লাহ তা’য়ালা সালাতের গুরুত্ব বা নামাজের গুরুত্ব সম্পর্কে  সূরা হজ্জে বলেন, উহা এই জন্য যে, আল্লাহ তিনিই প্রকৃত সত্য এবং ওরা তাঁর পরিবর্তে যাকে ডাকে সে বাতিল।  সূরা লোকমানে আল্লাহ তা’য়ালা বলেন, উহা এই জন্য যে, আল্লাহ্ তিনিই প্রকৃত সত্য এবং ওরা তাঁর পরিবর্তে যাকে ডাকে তো বাতিল।

সালাতের গুরুত্ব বা নামাজের গুরুত্ব সম্পর্কে আল্লাহ সুবহানাহু তা’য়ালা আরও বলেন, তোমার প্রতিপালক এই মর্মে আদেশ দিয়েছেন যে, তোমরা তিনি ব্যতীত অন্য কাারো এবাদত করবে না। আল্লাহ আরও বলেন, আমরা একমাত্র তোমারই এবাদত করি ও শুধুমাত্র তোমার কাছেই সাহায্য প্রার্থণা করি। তিনি আরো বলেন, তারা তো অদিষ্ট হয়েছিল আল্লাহর আনুগত্য করতে বিশুদ্ধচিত্ত হয়ে একনিষ্ঠভাবে।

আরও বই পড়ুন – ঈমান সবার আগে

সালাতের গুরুত্ব বা নামাজের গুরুত্ব হল ইসলামের বড় ভিত্তি, দ্বীন ইসলামের মূল বিষয়, ইহা দ্বীন ইসলামে প্রবেশের প্রথম জিনিস, অত:পর এই সাক্ষ্য প্রদান করা যে, মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহী ওয়াসাল্লাম আল্লাহর রাসূল। এই দুই সাক্ষ্য দ্বীনের মূল বিষয়, এদুটি ছাড়া দ্বীন শুদ্ধ হবেনা। একটি অপরটির সাথে অতপ্রত ভাবে জড়িত, মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহী ওয়াসাল্লাম রাসূল হিসেবে প্রেরিত হওয়ার পর উভয়ের প্রতি ঈমান আনা জরুরী।

অত:এব আল্লাহর একত্বের ঘোষনা ও নবী মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহী ওয়াসাল্লাম এর প্রতি ঈমান না আনা পর্যন্ত ইসলামে দিক্ষিত হবেনা। কোন ব্যক্তি যদিও দিনে রোজা রাখে এবং রাতে কিয়াম করে ও সব ধরণের এবাদত আল্লাহর জন্য করে আর মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহী ওয়াসাল্লামকে রাসূল রুপে প্রেরণ করার পরেও যদি তাঁর প্রতি ঈমান না আনে তাহলে সে কাফেরই থাকবে, বরং সমস্ত আহলে এলমের নিকট মানুষের মধ্যে সে বড় কাফের হিসেবে বিবেচিত।

আর যদি কেউ মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহী ওয়াসাল্লামকে সত্য নবী হিসেবে বিশ্বাস করে এবং সব ধরণের ভাল কাজ করে, আর আল্লাহর সাথে শরীক করে, অর্থাৎ ফেরেশতা, নবী, মুর্তি, বৃক্ষ, পাথর, জীন ও তারকার উপাসনা করে তাহলে এর ফলে সে পথভ্রষ্ট কাফেরে পরিণত হবে, যদিও সে বলে যে, মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহী ওয়াসাল্লাম আল্লাহর রাসূল। উভয়ের প্রতি ঈমান আনা একান্ত জরুরী।

DOWNLOAD NOW


ভিডিউ টিউটোরিয়াল পেতে আমাদের চ্যনেলটি সাবস্ক্রাইব করুন।

Online Academy BD