জানাযার বিধিবিধান সংক্রান্ত ৭০ টি প্রশ্ন

379

জানাযার বিধিবিধান সংক্রান্ত ৭০ টি প্রশ্ন

জানাযার বিধিবিধান সংক্রান্ত ৭০ টি প্রশ্ন

  • মরণাপন্ন ব্যক্তির কাছে উপস্থিত ব্যক্তির করণীয় কি? আর মরণাপন্ন ব্যক্তির নিকট সূরা ইয়াসিন পড়া কি সুন্নাতসম্মত।

উত্তরঃ বিসমিল্লাহির রহমানির রহীম। সমস্ত প্রশংসা মহান রব্বুল আলামীনের জন্য, দরূদ এবং সালাম বর্ষিত হোক আমাদের নবীর প্রতি, তাঁর পরিবারবর্গের প্রতি এবং সকল সাহাবীর প্রতি। আর যে রোগী দেখতে যাবে, তার জন্য উচিৎ হবে রোগীকে তওবা, যরূরী অছিয়ত এবং সর্বদা আল্লাহর যিকর করার কথা স্বরণ কিরয়ে দেওয়া। কেননা রোগী এ সময় এ জাতীয় বিষয়ের খুব বেশী মুখাপেক্ষী থাকে। অনুরূপভাবে রোগী যদি মৃত্যুমুখে পতিত হয় এবং তার কাছে উপস্থিত ব্যক্তি যদি নিশ্চিত হয় যে, তার মৃত্যু এসে গেছে, তাহলে তার উচিৎ তাকে “লা ইলাহা ইল্লাল্লাহ” পড়ার কথা স্বরণ করিয়ে দেওয়া, যেমনটি রাসূল সাঃ আদেশ করেছেন।

আরও বই পড়ুন – কাফন দাফন জানাযা

জানাযার বিধিবিধান সংক্রান্ত ৭০ টি প্রশ্ন – সে শুনতে পায় এমন শব্দে তার নিকট আল্লাহর যিকর করবে। ফলে সে স্মরণ করবে এবং আল্লাহর যিকর করবে। বিদ্বানগণ বলেণ, মুমুর্ষু ব্যক্তিকে লা ইলাহা ইল্লাল্লাহ পড়ার জন্য আদেশ করা উচিৎ নয়। কেননা তার মনটা ছোট হয়ে যাওয়া এবং তার এই কঠিন অবস্থার কারণে সে লা ইলাহা ইল্লাল্লাহ বলতে অস্বীকার করে বসতে পারে। আর অস্বীকার করে বসলেই তার শেষ ভাল হবে না। সেজন্য তার শয্যাপাশে লা ইলাহা ইল্লাল্লাহ পড়ে তাকে এই কালিমা স্বরণ করাবে।

  • মৃত ব্যক্তিকে গোসল করানোর নিয়ম – এতদ্বিষয়ে এবং মৃতকে গোসল দেওয়ার ব্যাপারে দ্বীনি ছাত্রবৃন্দের জন্য আপনার নছীহত কি?

জানাযার বিধিবিধান সংক্রান্ত ৭০ টি প্রশ্ন – উত্তরঃ মৃত ব্যক্তিকে এমন এক ঘেরা জায়গায় নিতে হবে, যেখানে কেউ তাকে দেখতে পাবে না। যারা তাকে গোসল করানোর কাজে সরাসরি অংশগ্রহণ করবে এবং যারা তাদেরকে সহযোগীতা করবে, তারা ছাড়া আর কেউ তার কাছে যাবে না। অতঃপর যে গোসল করাচ্ছে সে সহ অন্য কেউ যাতে তার লজ্জাস্থান দেখতে না পায়, সেজন্য তার লজ্জাস্থানে একটি নেকড়া দিয়ে দেহের কাপর-চোপর খুলে ফেলতে হবে। তারপর তাকে পরিষ্কার পরিছন্ন করতে হবে। অতঃপর সালাতের অযুর ন্যায় তাকে অযু করাবে। তবে বিদ্বানগণ বলেন, তার নাক-মুখে পানি প্রবেশ করাবে না। বরং একটা নেকড়া ভিজিয়ে তা দিয়ে মৃতের দাত সমূহ এবং নাকের ভেতরে ঘষে পরিষ্কার করে দিবে। এরপর মৃতের মাথা ধুয়ে দিবে।

আরও বই পড়ুন – জানাযার কিছু বিধান

অতঃপর তার সমস্ত শরীর ধুয়ে দিবে। তবে শরীর ধোয়ার সময় মৃত ব্যক্তির ডান অঙ্গ থেকে শুরু করবে। পানিতে বরই পাতা দেওয়া উচিৎ। কেননা তা পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতায় সাহায্য করে। বরই পাতার ফেনা দিয়ে মৃতের মাথা, দাড়ি ধুয়ে দিবে। অনুরূপভাবে শেষ বার ধোয়ার সময় পানিকে একটু কর্পুর মিশানো উচিত। কেননা রাসূল (সাঃ) তাঁর মেয়েকে গোসলদানকারী মহিলাগণকে বলেছিলেন, শেষবার ধোয়ার সময় পানিতে একটু কর্পুর মিশাবে। অতঃপর মৃতের গায়ের পানি মুছে তাকে কাফনের কাপর পরাবে।

জানাযার বিধিবিধান সংক্রান্ত ৭০ টি প্রশ্ন -মৃতকে গোসল দেওয়া ফরযে কেফায়াহ। কেউ তা সম্পন্ন করলে অন্যদের উপর থেকে ফরযিয়াত উঠে যাবে। আমার মতে, যারা মৃত ব্যক্তিকে শরঈ পদ্ধতিতে গোসল দিতে জানে, তারাই মৃতদের গোসলের দায়িত্ব নিবে। দ্বীনি শিক্ষায় শিক্ষার্থীদের সরাসরি গোসল করানোর কাজে অংশ নেওয়া যরূরী নায়। কেননা হতে পারে যে, শিক্ষার্থীরা এর চেয়ে আরো বেশী জরুরী কাজে ব্যস্থ রয়েছে। সেজন্য এ বিষয়ে দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্তৃপক্ষ গোসল দিলেই যথেষ্ট হবে। তাবে দ্বীনি শিক্ষায় শিক্ষার্থীদের মৃতকে কাফন-দাফন করার পদ্ধতি ভালভাবে জেনে রাখা উচিৎ।

জানাযার বিধিবিধান


DOWNLOAD NOW


ভিডিউ টিউটোরিয়াল পেতে আমাদের চ্যনেলটি সাবস্ক্রাইব করুন।

Online Academy BD